Thursday , 26 November 2020

আগা-গোড়া ঔষধিগুণে ভরা কালাকস্তুরির সুদর্শন ফুল

বান্দরবান জেলার উঁচু উঁচু পাহাড়ের সঙ্গে আমাদের খুব একটা পরিচয় নেই। ওখানকার উঁচু চূড়াগুলোর নামও আমাদের খুব একটা জানা নেই। সে তুলনায় মৌলভীবাজার জেলার পাথারিয়া পাহাড় আমাদের অনেক দিনের চেনা। এর নেপথ্যে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রেখেছে শাহরিয়ার কবিরের লেখা বিখ্যাত কিশোর উপন্যাস ‘পাথারিয়ার খনিরহস্য’। এই গ্রন্থটিই মূলত পাথারিয়া পাহাড়ের সঙ্গে আমাদের অন্য রকম একটি সম্পর্ক তৈরি করে দিয়েছে।
প্রায় দেড় যুগ আগে গিয়েছিলাম পাথারিয়া পাহাড় দেখতে। সঙ্গে ছিলেন স্থানীয় প্রকৃতিপ্রেমী দিগন্ত সৌরভ। দিনের কর্মব্যস্ততা শুরু হওয়ার আগেই আমরা ডিমাই বাজার হয়ে পাহাড়ের পাদদেশে পৌঁছলাম। তারপর অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে এসে একটি বড় ধরনের পাহাড়ি ছড়ার কাছে এসে থামলাম। ছড়ায় হাঁটুপানি। এবার আর বাবুগিরি চলবে না, জুতা খুলে প্যান্ট গোটাতে হবে। কারণ, সামনে আমাদের জন্য অনেক সৌন্দর্য অপেক্ষা করছে। শীতল পানি স্পর্শ করে চারপাশে তাকিয়ে দেখি উঁচু পাহাড়গুলো যেন আমাদের ঘিরে রেখেছে। ক্রমেই দুর্গম হয়ে উঠছে পথ।

ঝোপ-জঙ্গলভরা দু’পাশ দিনের বেলায়ও অন্ধকার। হাতের কাছেই নীলবনলতার ফুল, বন-আনারস। আরেকটু এগোতেই দৃষ্টি কাড়ল হলুদ রঙের কয়েকটি ফুল। প্রথমে ভেবেছিলাম বনঢ্যাঁড়শের ফুল। দেখতে অবিকল একই রকম। কিন্তু ছুঁয়ে দেখি কাঁটায় ভরা গাছ। এটি মূলত কালাকস্তুরির ফুল। তারপর বিভিন্ন বনে অনেকবার দেখেছি। ২০১৯ সালে দেখেছি বান্দরবানের লামায়। ভেরি আকৃতির বর্ষজীবী এমন অনেক ফুল আছে। আদতে দেখতে একই রকম হলেও বাস্তবে ভিন্নতা রয়েছে।

ফুলটির পোশাকি নাম কালাকস্তুরি বা মুশকদানা (Abelmuschus moschatus)। ইংরেজি নাম Annual Hibiscus, Tropical Jewel Hibiscus, Musk Okra ইত্যাদি। আগে কিছুটা সহজলভ্য থাকলেও এখন দুষ্প্রাপ্য হয়ে উঠেছে। বসবাসের ক্ষেত্রে সমতল বা অপেক্ষাকৃত উঁচু স্থানই পছন্দ। সাধারণত পথের ধারে এবং মিশ্র চিরসবুজ বনে সবচেয়ে বেশি দেখা যায়।

গাছ বর্ষজীবী, রোমশ ও ঝোপজাতীয়। পাতা ৩ থেকে ৫ লতিযুক্ত। ফুল হলুদ রঙের, মুক্ত, গভীর শিরাযুক্ত ও অসমান পাপড়ি সংখ্যা ৫, বৃত্তে মেরুন রঙের গোলাকার ছাপ। বীজতেল সুগন্ধি, এক সময় কস্তুরি বা মৃগনাভির বিকল্প হিসেবে ব্যবহূত হতো। এ কারণেই এমন নামকরণ। ফল দেখতে ঢ্যাঁড়শের মতোই, বীজ মিষ্টি স্বাদের, পাতা ও অগ্রক সবজি হিসেবে খাওয়া হয়। কালাকস্তুরি আগাগোড়া ঔষধিগুণে ভরা। প্রাচীনকাল থেকেই নানা কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে। জন্মস্থান ভারত-বাংলাদেশ।

Comments

Check Also

মাদরাসা থেকে নিখোঁজ ছাত্র

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে কওমী মাদরাসা থেকে এহসানুল হক হৃদয় (১০) এক ছাত্র নিখোঁজ হয়েছে। হৃদয় ২৩ …