Thursday , 24 September 2020

চালু আরও ১০ জোড়া ট্রেন

করোনাভাইরাসের কারণে প্রায় সাড়ে পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর আরও ১০ জোড়া ট্রেন চালু হয়েছে। রোববার সকাল থেকে বিভিন্ন গন্তব্যে এ ট্রেন চলাচল শুরু হয়। আগে থেকে ৩০ জোড়া ট্রেন চলাচল করছে। পর্যায়ক্রমে সব রুটের যাত্রীবাহী আন্তঃনগর ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলওয়ে। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর তৃতীয় ধাপে নতুন করে চলাচলের জন্য নামবে আরও ১৮ জোড়া যাত্রীবাহী ট্রেন।

রোববার সকাল থেকে ঢাকা এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন রুটে কমিউটার, মেইল, এক্সপ্রেস এবং লোকাল ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে।

রোববার থেকে যে ১০ জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে, সেগুলো হলো- চট্টগ্রাম-সিলেট-চট্টগ্রাম রুটে জালালাবাদ এক্সপ্রেস, ঢাকা-সিলেট-ঢাকা রুটে সুরমা মেইল, নোয়াখালীর-ঢাকা-নোয়াখালী রুটে ঢাকা/নোয়াখালী এক্সপ্রেস, চট্টগ্রাম-বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব-চট্টগ্রাম রুটে ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস, ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জ বাজার-ঢাকা রুটে ভাওয়াল এক্সপ্রেস, ময়মনসিংহ-বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব -ময়মনসিংহ রুটে ধলেশ্বরী এক্সপ্রেস, চাঁদপুর-লাকসাম-চাঁদপুর রুটে চাঁদপুর কমিউটার, নোয়াখালী-লাকসাম-নোয়াখালীর রুটে নোয়াখালী কমিউটার।

করোনার বিস্তার রোধে গত ২৪ মার্চ ট্রেন চলাচল বন্ধ করা হয়। সেদিন থেকে বন্ধ হয় কাউন্টারে টিকিট বিক্রিও। ৬৮ দিন পর ৩১ মে সীমিত পরিসরে ট্রেন চালু হলেও শতভাগ টিকিট অনলাইনে বিক্রি করছিল রেলওয়ে। সংস্থাটির সিদ্ধান্ত ছিল, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট আর কখনোই কাউন্টারে দেওয়া হবে না। দেশের সাত কোটিরও বেশি মানুষ ইন্টারনেট ব্যবহারকারী নন; এমন বাস্তবতায় শতভাগ টিকিট অনলাইনে বিক্রির সিদ্ধান্ত সমালোচনার মুখে পড়ে। আন্তঃনগরের টিকিট বিক্রিতে তাই শনিবার থেকে আগের নিয়মে ফিরেছে রেলওয়ে। অর্ধেক টিকিট ওয়েব সাইট ও অ্যাপে দেওয়া হচ্ছে। বাকি অর্ধেক দেওয়া হচ্ছে কাউন্টারে। তবে করোনার কারণে ট্রেনের অর্ধেক আসন খালি রাখায়, আদতে ইন্টারনেটে ২৫ ভাগ এবং বাকি ২৫ শতাংশ কাউন্টারে বিক্রি করা হচ্ছে।

Comments

Check Also

৪ অক্টোবর থেকে সৌদি ধাপে ধাপে ওমরাহ পালনের অনুমতি দেবে

প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করে ধীরে ধীরে ওমরাহ পালনের অনুমতি দেওয়া শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি …