Tuesday , 22 October 2019

ঠাকুরগাঁওয়ে থানায় মামলা সরকারি গাছ কাটায়

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা বড়গাঁও চামেশ্বরী চৌধুরী হাট এলাকায় পোস্ট অফিসের সামনে দুটি সরকারি গাছ কাটার অভিযোগে ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। অপর দিকে সদর থানার ওসি গাছ কর্তনের বিষয়টি আড়াল করার পায়তারা করছেন বলে অভিযোগও রয়েছে।

মঙ্গলবার বড়গাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আব্দুল জব্বার অবৈধ ভাবে গাছ কর্তনের অভিযোগে লিখিত এজাহার দাখিল করেন।

এজাহারকৃত আসামিরা হলেন, চামেশ্বরী এলাকার মৃত খতিব উদ্দিনের ছেলে মাহাবুর আলম, সিরাজুল ইসলামের ছেলে সাজেদুর রহমান ও দেবীপুর এলাকার সমশের আলীর ছেলে গোলাম রব্বানী।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলা বড়গাঁও ইউনিয়নের চামেশ্বরী চৌধুরী হাট এলাকায় রাস্তার পাশে দুটো বড় ইউক্লিপটাস গাছ মাহাবুরের নেতৃত্বে গত সোমবার বিকেলে কেটে ফেলা হয়। খবর পেয়ে ইউনিয়ন ভূমি অফিসের লোক ঘটনাস্থলে গেলে তাৎক্ষণিক সড়িয়ে ফেলা হয় গাছ দুটো। ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করলে আইনী ব্যবস্খা গ্রহণের পরামর্শ দেন।

গাছ কর্তনের সময় প্রত্যক্ষদর্শী অনেকেই জানান, সরকারি গাছ দুটো কাটার সময় অনেকেই বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রবি ভাই মাহাবুব আলম ক্ষমতা দাপটে দ্রুত গাছগুলো কেটে সরিয়ে ফেলেন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতার ভাই মাহাবুব আলম একটি কলেজের প্রভাষক হওয়া সত্ত্বেও সরকার দলীয় লোক বলে এলাকায় গাছ কর্তনসহ বিভিন্ন অনিয়মেরর সাথে জড়িয়ে পড়ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

বড়গাঁও ইউনিয়ন পরিষদের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা আব্দুল জব্বার জানান, কর্তনকৃত গাছ দুটো সরকারি জমিতে ছিল। অবৈধভাবে সরকারি গাছ কর্তনের নিয়ম নেই। তাই উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় গাছ কাটার সাথে জড়িত থাকায় ৩ জনের থানায় এজাহার দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্ত মাহাবুব আলমের সাথে গাছ কর্তনের বিষয়ে জানতে চাইলে কোন ভাবেই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

ইউপি চেয়ারম্যান প্রভাত সিং বলেন, গাছ কাটার কথা শুনেছি। ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে যাচাই-বাছাই করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বলা হয়েছে।

উপেজলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, সরকারি গাছ টেন্ডার ছাড়া কেউ ব্যক্তিগত ভাবে কর্তনের নিয়ম নেই। যেহেতু দাগ খতিয়ানে গাছ গুলো সরকারি বিবেচিত তাই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে ইউনিয়ন ভূমি অফিসকে।

গাছ কর্তনের অভিযোগ দায়ের বিষয়ে জানতে চাইলে অস্বীকার করে সদর থানায় ওসি আশিকুর রহমান বলেন, এখন পর্যন্ত কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি গাছ কর্তনের।

অপরদিকে ৮ ডিসেম্বর সদর থানায় লিখিত এজাহারে ডিউটি অফিসারের সাক্ষর রয়েছে। এজাহারের রিসিভ কপি ইউনিয়ন সহকারি ভূমি কর্মকর্তা জব্বারের কাছে রয়েছে বলে স্বীকার করেন।

Comments

Check Also

কিশোরগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে এক নারীর মৃত্যু

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে ট্রেনে কাটা পড়ে হাজেরা খাতুন  (৬৫) নামে এক নারী নিহত হয়েছেন। সে শিবপুর …