বুধবার , ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বাড়ি, নাকি প্রাসাদ তারকাদের!

পর্দায় তারকাদের চমৎকার সব বাড়িতে থাকতে দেখা যায়। দেখে মনে হয়, ইশ্, এমন একটা বাড়ি যদি আমারও থাকত! কিন্তু বাস্তবে তারকারা ঠিক কেমন বাড়িতে থাকেন, তাঁদের বাড়িঘর কতটা জৌলুশপূর্ণ, তা অনেকেরই অজানা। এ নিয়ে ভক্তদের কৌতূহলেরও শেষ নেই। অগাধ টাকাপয়সার কল্যাণে বেশির ভাগ তারকাই বসবাসের জন্য বিলাসবহুল বাড়ি কেনেন। কেউ কেউ তো আস্ত একটা দ্বীপই কিনে ফেলেন। হলিউডের এমন অনেক তারকা আছেন, যাঁদের রয়েছে বিশাল আলিশান বাড়ি। যে বাড়িগুলোকে প্রাসাদ বললেও ভুল হবে না।

তারকাদের বিলাসবহুল বাড়ির কথা উঠলেই বলতে হয় জনপ্রিয় হলিউড তারকা ব্র্যাড পিটের কথা। তাঁর বাড়ি দেখে অনেকেরই চোখ কপালে উঠবে। মুগ্ধ হতে বাধ্য হবেন যে কেউ। একাধিক আলিশান বাড়ি রয়েছে এই তারকার। তার মধ্যে অন্যতম রিউ অরল্যান্সের ফ্রেঞ্চ কোয়ার্টারের বাড়িটি। এই বাড়িতেই সাবেক স্ত্রী অ্যাঞ্জেলিনা জোলিকে নিয়ে থাকতেন তিনি। বিচ্ছেদের পর এই বাড়িতে খুব একটা থাকা হয় না ব্র্যাডের। বাড়িটিতে রয়েছে দৃষ্টিনন্দন সিঁড়ি আর দুটি অতিথি ভবন।

অ্যাঞ্জেলিনা জোলির এই বাড়ির মূল্য আনুমানিক দুই কোটি পাঁচ লাখ মার্কিন ডলারঅ্যাঞ্জেলিনা জোলির এই বাড়ির মূল্য আনুমানিক দুই কোটি পাঁচ লাখ মার্কিন ডলারঅ্যাঞ্জেলিনা জোলি
ব্র্যাড পিটের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর কিছুদিন ভাড়া বাড়িতে ছিলেন অ্যাঞ্জেলিনা জোলি। অল্প দিনের মধ্যেই তিনি কিনে ফেলেন প্রাসাদসম এক বাড়ি। ছয় সন্তান নিয়ে অসম্ভব সুন্দর ওই বাড়িতেই অধিকাংশ সময় থাকেন জোলি। একসময় লস অ্যাঞ্জেলসের এই বাড়িটি ছিল ‘সিসিল বি ডেমিল’ খ্যাত প্রয়াত নির্মাতা লস ফেলিজের। ২ দশমিক ১ একর জমিতে নির্মিত বাড়িটিতে রয়েছে একটি সুদৃশ্য সুইমিং পুল, দৃষ্টিনন্দন বাগান, লাইব্রেরিসহ নানা কিছু। রয়েছে ছয়টি শোবার ঘর, ১০টি স্নানঘর, একটি বিলাসবহুল অতিথিশালা। বাড়িটির মূল্য আনুমানিক দুই কোটি পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার।

জর্জ ক্লুনির রুচির প্রশংসায় পঞ্চমুখ অনেকেইজর্জ ক্লুনির রুচির প্রশংসায় পঞ্চমুখ অনেকেইজর্জ ক্লুনি
প্রখ্যাত অভিনেতা জর্জ ক্লুনির রুচিবোধের প্রশংসায় পঞ্চমুখ অনেকেই; বিশেষ করে ইতালির ল্যাগলিও শহরের ছোট লেকের পাশে অবস্থিত তাঁর বিলাসবহুল বাড়িটি দেখে যে কেউ বিস্ময়ে বিহ্বল হবেন। মনে মনে এই তারকাকে বাহবা দেবেন। ২০০১ সালে জর্জ ক্লুনি ২৫ কক্ষবিশিষ্ট অদ্ভুত সুন্দর এই ইতালিয়ান ভিলাটি কেনেন। চমকপ্রদ এই বাড়িতে রয়েছে বিশালাকার সুইমিং পুল। আর বাড়ির চারপাশের অপার সৌন্দর্য তো আছেই। সত্যি বলতে বাড়িটির সবকিছুই মনোমুগ্ধকর।

জনি ডেপ ভালোবাসেন আয়েশি জীবন যাপন করতেজনি ডেপ ভালোবাসেন আয়েশি জীবন যাপন করতেজনি ডেপ
‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ ছবির তারকা জনি ডেপ ভালোবাসেন আয়েশি জীবন যাপন করতে। তিনি রীতিমতো আস্ত একটা দ্বীপই কিনে ফেলেছেন। বাহামাসে লিটল হল’স পন্ড কে দ্বীপের মালিক তিনি। ৪৫ একরের দ্বীপটি ৩৬ লাখ ডলারের বিনিময়ে কিনেছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা। এখানে রয়েছে ছয়টি সমুদ্রসৈকত। প্রিয়জনের নামে এগুলোর নামকরণও করেছেন তিনি। ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান’ সিরিজের কোনো একটি ছবিতে কাজ করতে গিয়েই নাকি দ্বীপটি ভালো লেগে যায় ‘ক্যাপ্টেন জ্যাক স্প্যারো’র।

১০৪ একর জায়গাজুড়ে এই দ্বীপের মালিক হন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও১০৪ একর জায়গাজুড়ে এই দ্বীপের মালিক হন লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিওলিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও
বিলাসবহুল জীবনযাপনে কম যান না ‘টাইটানিক’ ছবির তারকা লিওনার্দো ডিক্যাপ্রিও। তিনিও একটি আস্ত দ্বীপের মালিক। ২০০৫ সালে ব্ল্যাকাডোর কেই নামের দ্বীপটির মালিক হন তিনি। ১০৪ একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত বন্য প্রাণীর বসবাসের উপযোগী দ্বীপটি একেবারেই জনমানবশূন্য। তবে এখানে রয়েছে মনকাড়া অট্টালিকা, সুইমিং পুলসহ আধুনিক অনেক কিছু। এ ছাড়া লস অ্যাঞ্জেলেসে বিলাসবহুল ম্যানশন রয়েছে লিওনার্দোর।

Comments

Check Also

যা বললেন সালমান বিয়ের প্রশ্নের উত্তরে

ভারতের জনপ্রিয় ও বিতর্কিত টিভি শো ‘বিগ বস ১২’ সিজন আবারও প্রচার শুরু হচ্ছে।  ১৬ …