Saturday , 8 August 2020

বোনকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় হাত ভেঙ্গে দেয় ভাইয়ের

প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে বিবাহিত বোনকে রাস্তাঘাটে উত্ত্যক্ত করার প্রতিবাদ করায় ভাইকে বেধড়ক পিটিয়ে হাত ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। রবিবার লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার পূর্ব জগতবেড় ভেরভেরীরহাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পাটগ্রাম থানায় দেওয়া অভিযোগ ও ভুক্তভোগীর মা বেলি বেগম জানান, বিবাহ উপযুক্ত মেয়েকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত একই গ্রামের আব্দুর রহমান হাজীর ছেলে রানা (২৫)। প্রকাশ্যে খুন ও জখম করার হুমকিও দিত। রানার পরিবার প্রভাবশালী ও কতিপয় ক্ষমতাসীন নেতার আশীর্বাদ পুষ্ট হওয়ায় স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান, মেম্বার, নেতা ও দেওয়ানীদের নিকট ঘুরেও মেয়েকে উত্ত্যক্ত করার বিচার চেয়ে পাননি। ভয়ে মেয়ের পরিবার দিনদুপুরে বসতবাড়ি থেকে বের হতো না বলে জানান তিনি ।

তিনি আরও জানান, ‘রানা হুমকি দিয়ে বলে কাউকে কোন কিছু বললে আমাদের পরিবারের সবাইকে নাকি সাত টুকরা করা হবে।’ অনেক কষ্টে একই উপজেলার ধবলগুড়ি গ্রামে মেয়েকে বিয়ে দেওয়া হয়। এরপর রানা ও তার সহযোগীরা বাড়িতে গিয়ে বলে, ‘মেয়ে ও মেয়ের স্বামী চোখের সামনে পড়লেই খুন করা হবে।’ এ সকল হুমকির প্রতিবাদ করার ঘটনায় কলেজ যাওয়ার পথে রবিবার মেয়ের বড় ভাই সুমনকে (২৪) রানা ও তার ৫/৬ জন সহযোগী লোহার রড দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে ডান হাত ভেঙ্গে দেয়। বর্তমানে সে পাটগ্রাম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) মেয়ের বাবা আব্দুল গফুর বলেন, ‘থানায় অভিযোগ দিয়েছি। বিচার যদি না পাই, তাহলে আমাদের পরিবারের সবাইকে আত্মহত্যা করা ছাড়া উপায় নাই।’

 

মেয়ের ভাই সুমন বলেন, ‘কলেজ যাওয়ার সময় আমাকে লোহার রড ও গাছের ডাল দিয়ে রানা ও সুমন অমানসিকভাবে মারপিট করে। হাত ভেঙ্গে দেয়। আমরা গরীব মানুষ আমার বোনের কি হবে। আমরা উপযুক্ত বিচার চাই।’ এ ব্যাপারে রানা বলেন, ‘মেয়েলি বিষয় নিয়ে ঝামেলা। আমি মারধর করিনি। আমার ছোট ভাই মনির চড়, থাপ্পড় দিছে।’

পাটগ্রাম থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুমন কুমার মহন্ত বলেন, ‘এজাহার পেয়েছি। তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

Comments

Check Also

বগুড়ায় গাছ ফেলে মহাসড়কে ডাকাতির চেষ্টা, গ্রেপ্তার ৪

নন্দীগ্রামের সিংজানী এলাকায় বগুড়ার-নাটোর মহাসড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ডাকাতদলের ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। …