Tuesday , 18 June 2019

২০ জুন রাজীবের কোটি টাকা ক্ষতিপূরণের রায়

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে দুই বাসের চাপায় হাত হারানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব হাসানের মৃত্যুর ঘটনায় কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে করা রুলের ওপর ২০ জুন রায়ের দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এ দিন ধার্য করেন। এর আগে গত ১৯ মে রুলের শুনানি শেষে ২৩ মে রায়ের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছিল। তবে রায়ের ঘোষণার জন্য নির্ধারিত এই দিনে ফের শুনানি গ্রহণ করা হয়।

এদিন কোনো ব্যক্তি দুর্ঘটনায় আহত বা নিহত হলে সংশ্লিষ্ট যানের ইন্স্যুরেন্সকারী কোম্পানি কীভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিকে ক্ষতিপূরণের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে, সে বিষয়ে পক্ষে-বিপক্ষে আইনগত ব্যাখ্যা তুলে ধরেন আইনজীবীরা।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ক্ষতিপূরণ চেয়ে আবেদনকারী আইনজীবী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। বিআরটিসির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ রাফিউল ইসলাম এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোহাতার হোসেন সাজু।

গত বছরের ৩ এপ্রিল রাজধানীর কারওয়ান বাজারের সার্ক ফোয়ারার কাছে বিআরটিসি ও স্বজন পরিবহনের দুই বাসের রেষারেষিতে হাত হারান ছাত্র রাজীব। দুই বাসের চাপায় তার ডান হাত কনুইয়ের ওপর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। দুর্ঘটনার পরপরই তাকে পান্থপথের শমরিতা হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরদিন ৪ এপ্রিল রাজীবের চিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস কাজল। ওই রিট বিচারাধীন অবস্থায় রাজীবের শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ১৩ দিন চিকিৎসার পর ১৬ এপ্রিল ওই হাসপাতালেই মারা যান রাজীব হাসান। পরে তার মৃত্যুর সংবাদ আদালতকে অবহিত করেন রিটকারী আইনজীবী। এরপর আদালত রিটের শুনানি নিয়ে রাজীবের মৃত্যুর ঘটনায় তার পরিবারকে কেন এক কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন। যার ধারাবাহিকতায় ওই রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার রায়ের দিন ধার্য করেন হাইকোর্ট।

Comments

Check Also

সদরঘাটে লঞ্চের কেবিনে নারীর মৃতদেহ

রাজধানীর সদরঘাট টার্মিনালে এম ভি মিতালী (৭) নামে এক লঞ্চ থেকে নীলুফা (২৭) নামে এক …